Friday, 3 March 2017

Biggest healthcare reform comes in West Bengal from Today – Highlights of new Health Bill

Mamata Banerjee led Government has ushered in sweeping reforms in healthcare system in the State with the new West Bengal Clinical Establishments (Registration, Regulation and Transparency) Bill, 2017.

The bill aims to regulate the private hospitals and bring in transparency in the manner in which they operate.

It may be mentioned that on 22 February, the Chief Minister had conducted a meeting with representatives of various private hospitals and nursing homes in Kolkata. In the meeting she had announced the formation of a regulatory commission for private hospitals.

Highlights of the bill:

From bed charge to cost of surgery or ICU charges, all packages must have a specific charge.

Patients must not be charged more than what is mentioned in the rate chart.

Additional costs, if any, during the course of treatment, cannot exceed a certain percentage of the package. The additional cost must be clearly specified in the bill.

Every hospital must display the fixed rate chart.

e-prescriptions and all medical records must be given to patients.

Help desks must be set up to assist families of patients regarding any information about the bill or treatment.

Hospitals cannot withhold the bodies of deceased patients if bill is pending.

Primary treatment must be provided to accident victims before informing the police.

Hospitals with more than 100 beds must start fair price medicine shops.

If any hospital violates the new law, they will be fined Rs 10 lakh or more.

Government also has the right to cancel their license.

 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিরাট সংস্কার

এবার হাসপাতালের লাগাম ছাড়া বিলে রাশ টানতে কড়া আইন আনলেন মুখ্যমন্ত্রী। নতুন যে আইন মুখ্যমন্ত্রী তৈরি করছেন, তাতে কী থাকছে?

• নতুন বিলের নাম ওয়েস্ট বেঙ্গল ক্লিনিক্যাল এস্টাব্লিশমেন্টস (রেজিস্ট্রেশন, রেগুলেশন অ্যান্ড ট্রান্সপেরেন্সি) বিল ২০১৭।

• অপারেশন থেকে শুরু করে বেডের চার্জ, আইসিইউ থেকে যেকোনও প্যাকেজের দর নির্দিষ্ট করে রাখতে হবে। তার থেকে বেশি টাকা কোনও অবস্থাতেই নেওয়া যাবে না।

• চিকিৎসা চলাকালীন আরও কোনও খরচ বাড়লেও সেই রেট বা চার্জের বাইরে একটি নির্দিষ্ট শতাংশ টাকাই অতিরিক্ত হিসেবে বিলে সংযোজন করা যাবে। অতিরিক্ত খরচের সবটা বিলে স্পষ্ট করে উল্লেখ করতে হবে।

• ফিক্সড রেট চার্ট টাঙিয়ে দিতে হবে প্রত্যেকটি হাসপাতালে।

• ই-প্রেসক্রিপশন ও সব মেডিক্যাল রেকর্ডসের ই-কপি সব রোগীকে সরবরাহ করতে হবে।

• বিল ও চিকিৎসা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য রোগীর পরিবারকে জানানোর জন্য হাসপাতালে হেল্প ডেস্ক স্থাপন করতে হবে।

• বিল বাকি থাকলেও মৃতদেহ কোনও ভাবে আটকে রাখা যাবে না।

• দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে আগে প্রাথমিক চিকিৎসা করে তার পর পুলিশকে জানাতে হবে।

• ১০০ বা তার বেশি শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ফেয়ার প্রাইস মেডিসিন শপ চালু করতে হবে।

• নতুন আইনের কোনও ধারা অমান্য করলে বেসরকারি হাসাপাতালের ১০ লাখ টাকার বেশি জরিমানা এবং লাইসেন্স বাতিলের ক্ষমতা থাকছে রাজ্য সরকারের হাতে।